০৪:৪৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গুচ্ছের সি ইউনিটে ইবি কেন্দ্রে উপস্থিতি ৯২ শতাংশ

দেশের ২৪ টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির সমন্বিত গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার শেষ দিনে সি ইউনিটের (বাণিজ্য) পরীক্ষায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) কেন্দ্র উপস্থিতি ছিল ৯২ শতাংশ।

শুক্রবার (১০ মে) বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ইবি কেন্দ্রের ২টি একাডেমিক ভবনে ১ হাজার ৪১৪ জন ভর্তিচ্ছুর আসন বিন্যাস করা হলেও পরীক্ষায় উপস্থিত ছিলেন ১৩০৭ জন যা মোট পরীক্ষার্থীর ৯২.৪৩ শতাংশ। ‘সি’ ইউনিটের সমন্বয়কারী ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন প্রফেসর মোঃ সাইফুল ইসলাম এই তথ্য জানান।

অন্যান্য দিনের ন্যায় আজও পরীক্ষার হল পরিদর্শন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান, ট্রেজারার অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এইচ. এম. আলী হাসান, থিওলজি অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিজ অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আ.ব.ম. ছিদ্দিকুর রহমান আশ্রাফী, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন,  ড. মোহাঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, প্রক্টর অধ্যাপক ড. শাহাদৎ হোসেন আজাদ প্রমুখ।

এদিন নকল ও প্রক্সিমুক্ত ভর্তি পরীক্ষা এবং ক্যাম্পাস ও আশেপাশের এলাকার নিরাপত্তা নিশ্চিতে সবরকম ব্যবস্থা গ্রহণ করে কুষ্টিয়া ও ঝিনাইদহ জেলা পুলিশের পাশাপাশি র‍্যাব, গোয়েন্দা সংস্থা ও আনসার সদস্যবৃন্দ। যেকোন অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি দমনে সার্বক্ষণিক মনিটরিংয়ে ছিল ভ্রাম্যমান আদালত। এছাড়াও বিএনসিসি ও রোভার-স্কাউট গ্রুপের সদস্যরা শৃঙ্খলারক্ষাসহ বিভিন্নভাবে পরীক্ষার্থীদের সহযোগিতায় নিয়োজিত ছিলেন।

ঘূর্ণিঝড় রেমাল মোকাবেলায় কতটুকু প্রস্তুত পবিপ্রবি?

গুচ্ছের সি ইউনিটে ইবি কেন্দ্রে উপস্থিতি ৯২ শতাংশ

আপডেট সময় : ০২:০৩:২৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ মে ২০২৪

দেশের ২৪ টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির সমন্বিত গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার শেষ দিনে সি ইউনিটের (বাণিজ্য) পরীক্ষায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) কেন্দ্র উপস্থিতি ছিল ৯২ শতাংশ।

শুক্রবার (১০ মে) বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ইবি কেন্দ্রের ২টি একাডেমিক ভবনে ১ হাজার ৪১৪ জন ভর্তিচ্ছুর আসন বিন্যাস করা হলেও পরীক্ষায় উপস্থিত ছিলেন ১৩০৭ জন যা মোট পরীক্ষার্থীর ৯২.৪৩ শতাংশ। ‘সি’ ইউনিটের সমন্বয়কারী ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন প্রফেসর মোঃ সাইফুল ইসলাম এই তথ্য জানান।

অন্যান্য দিনের ন্যায় আজও পরীক্ষার হল পরিদর্শন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান, ট্রেজারার অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এইচ. এম. আলী হাসান, থিওলজি অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিজ অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আ.ব.ম. ছিদ্দিকুর রহমান আশ্রাফী, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন,  ড. মোহাঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, প্রক্টর অধ্যাপক ড. শাহাদৎ হোসেন আজাদ প্রমুখ।

এদিন নকল ও প্রক্সিমুক্ত ভর্তি পরীক্ষা এবং ক্যাম্পাস ও আশেপাশের এলাকার নিরাপত্তা নিশ্চিতে সবরকম ব্যবস্থা গ্রহণ করে কুষ্টিয়া ও ঝিনাইদহ জেলা পুলিশের পাশাপাশি র‍্যাব, গোয়েন্দা সংস্থা ও আনসার সদস্যবৃন্দ। যেকোন অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি দমনে সার্বক্ষণিক মনিটরিংয়ে ছিল ভ্রাম্যমান আদালত। এছাড়াও বিএনসিসি ও রোভার-স্কাউট গ্রুপের সদস্যরা শৃঙ্খলারক্ষাসহ বিভিন্নভাবে পরীক্ষার্থীদের সহযোগিতায় নিয়োজিত ছিলেন।