১১:৪১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পরকীয়া প্রেমিকের সাথে মায়ের পলায়ন,ক্ষোভে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা 

Oplus_0

বরিশালের বানারীপাড়ায় প্রেমিকের সাথে মা পালিয়ে যাওয়ায় আত্মহত্যা করেছে স্কুল পড়ুয়া ছাত্রী। ১১ই জুন মঙ্গলবার বাড়ির বাথরুমে ঝুলন্ত  অবস্থায় ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয় বলে বানারীপাড়া থানার পরিদর্শাক(তদন্ত) মো. মমিন উদ্দীন জানিয়েছেন। এই স্কুল ছাত্রী জান্নাতুল (১৩) উপজেলার সলিয়াবাকপুর ইউনিয়নের বেতাল গ্রামের বাসিন্দা সৌদি আরব প্রবাসী নাসিরউদ্দিন পাপনের কন্যা। জান্নাতুল উপজেলার ধারালিয়া সৈয়দ বজলুল হক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর শিক্ষার্থী।
পরিদর্শক(তদন্ত) মমিন উদ্দীন জানান, স্কুল পড়ুয়া ছাত্রীর বাবা সৌদি আরব প্রবাসী। মা পরকীয়ায় লিপ্ত থাকায় দাদা-দাদি,নানা-নানি ও প্রতিবেশীদের সাথে সম্পর্ক ভালো ছিল না। মেয়ে জান্নাতুল ও ছোট ছেলেকে নিয়ে মা ধারালিয়া গ্রামের সরদার বাড়িতে ভাড়া থাকত। মঙ্গলবার সকালে ঘুম থেকে উঠে সন্তানেরা মাকে ঘরে পায়নি। তার ব্যবহৃত জিনিসপত্র কোনোকিছু নেই। ধারণা করা হচ্ছে ঐ মা পরকীয়া প্রেমিকের সাথে পালিয়ে যায়। তাই রাগে ও ক্ষোভে বাড়ির বাথরুমের আড়ার সাথে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস দেয় জান্নাতুল। প্রতিবেশীরা দেখতে পেয়ে দরজা ভেঙে জান্নাতুলকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে।দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
পরিদর্শক আরো জানান, আপাতত অপমৃত্যুর মামলা করে লাশকে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হবে।আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ করলে মামলা নেয়া হবে।
জনপ্রিয় সংবাদ

টিউশনের নামে প্রতারণার ফাঁদ

পরকীয়া প্রেমিকের সাথে মায়ের পলায়ন,ক্ষোভে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা 

আপডেট সময় : ০৭:৩৪:৫৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ জুন ২০২৪
বরিশালের বানারীপাড়ায় প্রেমিকের সাথে মা পালিয়ে যাওয়ায় আত্মহত্যা করেছে স্কুল পড়ুয়া ছাত্রী। ১১ই জুন মঙ্গলবার বাড়ির বাথরুমে ঝুলন্ত  অবস্থায় ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয় বলে বানারীপাড়া থানার পরিদর্শাক(তদন্ত) মো. মমিন উদ্দীন জানিয়েছেন। এই স্কুল ছাত্রী জান্নাতুল (১৩) উপজেলার সলিয়াবাকপুর ইউনিয়নের বেতাল গ্রামের বাসিন্দা সৌদি আরব প্রবাসী নাসিরউদ্দিন পাপনের কন্যা। জান্নাতুল উপজেলার ধারালিয়া সৈয়দ বজলুল হক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর শিক্ষার্থী।
পরিদর্শক(তদন্ত) মমিন উদ্দীন জানান, স্কুল পড়ুয়া ছাত্রীর বাবা সৌদি আরব প্রবাসী। মা পরকীয়ায় লিপ্ত থাকায় দাদা-দাদি,নানা-নানি ও প্রতিবেশীদের সাথে সম্পর্ক ভালো ছিল না। মেয়ে জান্নাতুল ও ছোট ছেলেকে নিয়ে মা ধারালিয়া গ্রামের সরদার বাড়িতে ভাড়া থাকত। মঙ্গলবার সকালে ঘুম থেকে উঠে সন্তানেরা মাকে ঘরে পায়নি। তার ব্যবহৃত জিনিসপত্র কোনোকিছু নেই। ধারণা করা হচ্ছে ঐ মা পরকীয়া প্রেমিকের সাথে পালিয়ে যায়। তাই রাগে ও ক্ষোভে বাড়ির বাথরুমের আড়ার সাথে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস দেয় জান্নাতুল। প্রতিবেশীরা দেখতে পেয়ে দরজা ভেঙে জান্নাতুলকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে।দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
পরিদর্শক আরো জানান, আপাতত অপমৃত্যুর মামলা করে লাশকে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হবে।আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ করলে মামলা নেয়া হবে।