০৯:০২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সরিষাবাড়ীতে স্ত্রীর নির্যাতন মামলায় স্বামী কারাগারে

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় স্বামীকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ।

বুধবার (১২ জুন) দুপুরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাঁকে গ্রেপ্তার করে বিকালে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রেরণ করেন। আদালত
তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

গ্রেপ্তারকৃত শামিম মিয়া উপজেলার পোগলদিঘা ইউনিয়নের পাখিমারা গ্রামের সোলাইমান হোসেনের ছেলে।

পুলিশ ও মামলা সুত্রে জানা যায়, গত তিন বছর আগে উপজেলার পাখিমারা গ্রামের সোলাইমান হোসেনের ছেলে শামিম মিয়ার সাথে একই ইউনিয়নের তারাকান্দি এলাকার দেলোয়ার মিয়ার মেয়ে অর্থি জন্নাতের সাথে পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয়। তাদের সংসারে আট মাসের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। মেয়ের সুখের কথা ভেবে বিয়ের সময় শামিমকে নগদ ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা ও ঘরের ফার্নিচার বাবদ ১ লাখ টাকা দেয় মেয়ের বাবা দেলোয়ার হোসেন। কিন্তু বিয়ের পর থেকে স্বামী শামিম মিয়া স্ত্রী অর্থি জান্নাতকে বিভিন্ন সময়ে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করেন। আরো যৌতুক দাবি করেন শামিম মিয়া।যৌতুক দিতে অস্বীকার করলে ফের মারপিট  চালায় শামিম ও তার পরিবার। নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে অর্থি জান্নাত বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে বুধবার শামীমের বিরুদ্ধে সরিষাবাড়ি থানায় মামলা করেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে শামিমকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠান।

এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ মুশফিকুর রহমান বলেন, প্রাথমিক তদন্তে স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বুধবার বিকালে শামিমকে আদালতে পাঠালে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

সরিষাবাড়ীতে স্ত্রীর নির্যাতন মামলায় স্বামী কারাগারে

আপডেট সময় : ০৯:৪৭:৪৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় স্বামীকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ।

বুধবার (১২ জুন) দুপুরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাঁকে গ্রেপ্তার করে বিকালে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রেরণ করেন। আদালত
তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

গ্রেপ্তারকৃত শামিম মিয়া উপজেলার পোগলদিঘা ইউনিয়নের পাখিমারা গ্রামের সোলাইমান হোসেনের ছেলে।

পুলিশ ও মামলা সুত্রে জানা যায়, গত তিন বছর আগে উপজেলার পাখিমারা গ্রামের সোলাইমান হোসেনের ছেলে শামিম মিয়ার সাথে একই ইউনিয়নের তারাকান্দি এলাকার দেলোয়ার মিয়ার মেয়ে অর্থি জন্নাতের সাথে পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয়। তাদের সংসারে আট মাসের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। মেয়ের সুখের কথা ভেবে বিয়ের সময় শামিমকে নগদ ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা ও ঘরের ফার্নিচার বাবদ ১ লাখ টাকা দেয় মেয়ের বাবা দেলোয়ার হোসেন। কিন্তু বিয়ের পর থেকে স্বামী শামিম মিয়া স্ত্রী অর্থি জান্নাতকে বিভিন্ন সময়ে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করেন। আরো যৌতুক দাবি করেন শামিম মিয়া।যৌতুক দিতে অস্বীকার করলে ফের মারপিট  চালায় শামিম ও তার পরিবার। নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে অর্থি জান্নাত বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে বুধবার শামীমের বিরুদ্ধে সরিষাবাড়ি থানায় মামলা করেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে শামিমকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠান।

এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ মুশফিকুর রহমান বলেন, প্রাথমিক তদন্তে স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বুধবার বিকালে শামিমকে আদালতে পাঠালে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।